আসছে শীতকাল। কিভাবে নেবেন ত্বকের যত্ন !

আসছে শীতকাল। কিভাবে নেবেন ত্বকের যত্ন !

ঠান্ডা বাতাস ইতোমধ্যে জানান দিয়েছে শীতের আগমনী বার্তা। ঋতু পরিবরতনে তাই শুরু হয়েছে ত্বকের নানা সমস্যা। এসময় ত্বক রুক্ষ ও অনুজ্জ্বল হয়ে যায়। তাই ত্বকের চাই বাড়তি যত্ন।

ময়েশ্চারাইজিং প্রাকৃতিক সাবান

শুষ্ক ত্বকের অন্যতম সাধারণ কারণ হল আপনার সাবান। একটি হালকা প্রাকৃতিক, ময়েশ্চারাইজিং সাবান শুষ্ক ত্বকের জন্য বিশেষ করে শীত আবহাওয়ার সময় সুপারিশ করা হয়।

Handmade spa lavender soap on vintage wooden background. Soap making. Soap bars. Spa, skin care. Gift wrapping.

ময়েশ্চারাইজিং ! ময়েশ্চারাইজিং ! ময়েশ্চারাইজিং !

শুষ্ক ত্বকের ধরণের জন্য অবশ্যই একটি ময়েশ্চারাইজার নির্বাচন করতে হবে যা ত্বকে আর্দ্রতা ফিরিয়ে আনতে সহায়তা করে। অয়েল বেসড বা তেল-ভিত্তিক ময়েশ্চারাইজার ব্যবহার করা আরও ভাল যাতে ময়েশ্চারাইজিং উপাদান বা পেট্রোলেটাম-ভিত্তিক পণ্য রয়েছে। এই জাতীয় পণ্যগুলি আপনার ত্বককে আদ্র রাখতে বা হাইড্রেটেড রাখতে সহায়তা করবে।

05_Flatbed_2 – SEPTEMBER Original Filename: sb10068213n-012.jpg

অনেকক্ষণ ধরে গরম পানি দিয়ে গোসল এরান

শীতে গরম পানি দিয়ে গোসল করতে কে না পছন্দ করে! কিন্তু আমরা অনেকেই জানি না , এতে করে আমাদের ত্বক আরও শুষ্ক হয়ে যায়। যদি অনেকক্ষণ ধরে গরম পানি দিয়ে গোসল করেন তাহলে অতিরিক্ত ময়েশ্চারাইজার ব্যবহারের জন্য প্রস্তুত হন। তাই অনেকক্ষণ ধরে গরম পানি দিয়ে গোসল করা কমানো দরকার।

নিয়মিত এক্সফোলিয়েট

নিয়মিত এক্সফোলিয়েটের সবচেয়ে প্রথম এবং প্রধান উপকারীতা হচ্ছে তা ত্বকের গভীরে কোন ময়লা জমতে দেয়না।ফলে ত্বক হয় স্বাস্থকর এবং উজ্জ্বল। যারা রেগুলার মেকআপ সামগ্রী ব্যবহার করে থাকেন তাদের জন্য প্রতিদিন এক্সফোলিয়েট করা ছাড়া বিকল্প কোন উপায় নেই ক্লিন এন্ড ক্লিয়ার স্কিনের জন্য।

ঠোঁটের যত্ন

শীতকালে আমাদের ঠোঁট অনেক শুষ্ক হয়ে ওঠে। তাই ঠোঁটের আদ্রতা ধরে রাখতে লিপ বাম লাগান। এতে ঠোঁট থাকবে নরম এবং ঠোঁট ফাটার ভয় থাকবে না।

ভিতর থেকে হাইড্রেট

গ্রীষ্মের দিনে এক গ্লাস ঠান্ডা জল বেশ সন্তুষ্টিজনক হতে পারে, তবে, যখন বাইরে তাপমাত্রা শীতল হয়ে যায় তখন ঠাণ্ডা পানীয় উপভোগ করা মোটেও ঠিক নয়। এ কারণেই অনেকেই পানি কম পান করে। ফলে শীতে হাইড্রেটেড থাকা কঠিন হয়ে অঠে।আপনার শরীরের সঠিকভাবে কাজ করতে পানি প্রয়োজন।

পানি শরীরের তাপমাত্রা নিয়ন্ত্রণ করতে সহায়তা করে এবং কোষ, টিস্যু এবং অঙ্গগুলির কাজ করার জন্য প্রয়োজনীয় উপাদান। শরীরের অন্যান্য কোষের মতো ত্বকের কোষগুলিও পানি দিয়ে তৈরি। আপনার ত্বকে যদি পর্যাপ্ত পরিমাণে পানি না পাওয়া যায় তবে তা শুকনো এবং টাইট হয়ে যাবে। শুষ্ক ত্বকের স্থিতিস্থাপকতা কম থাকে এবং চুলকানির ঝুঁকি বেশি থাকে।

শীতে যদি আপনার প্রচুর পরিমাণে ঠাণ্ডা জল পান করতে অসুবিধা হয় তবে হালকা গরম পানিতে লেবু যুক্ত করার চেষ্টা করুন।

সানস্ক্রিন

গরমের পাশাপাশি শীতকালেও ব্যবহার করা উচিত সানস্ক্রিন। এতে আপনার ত্বক সূর্যের ক্ষতিকারক আলো থেকে রক্ষা পাবে। অবশ্যই এসপিএফ ৪০+ সানস্ক্রিন নিতে হবে।

এখন আসুন জেনে নেই শীতে ত্বকের জন্য কিছু ঘরোয়া প্যাক——–

নারকেল তেল ম্যাসেজ

আপনার ত্বকে ফ্যাটি অ্যাসিডের অভাব থেকে হয় শুষ্ক ত্বক। আপনার ত্বকের হারানো ফ্যাটি অ্যাসিডগুলি পূরণ করার সর্বোত্তম উৎস হল নারকেল তেল। রাতে, আপনার মুখটি পুরোপুরি ধুয়ে ফেলুন এবং ৫ মিনিটের জন্য নারকেল তেল দিয়ে ম্যাসাজ করুন, রাতারাতি রেখে দিন। নারকেল তেল আপনার ত্বকে শোষিত করবে এবং আপনার ত্বককে মসৃণ এবং স্বাস্থ্যকর করবে।

ঘৃতকুমারী

অ্যালোভেরাতে প্রদাহ বিরোধী বৈশিষ্ট্য রয়েছে এবং কোলাজেন এবং ইলাস্টিনের স্তর উন্নত করে। এর থেকে জেলটি বের করে আপনার মুখে লাগান এবং রাতারাতি রেখে দিন। ভাল ফলাফল দেখতে প্রতি রাতে ব্যবহার করুন।

মিল্ক পাউডার ফেস প্যাক

দুধে স্বাস্থ্যকর ফ্যাট এবং অ্যামিনো অ্যাসিড থাকে এবং একটি ভাল ময়েশ্চারাইজার হিসাবে কাজ করে। ২ চা চামচ দুধের গুঁড়া + এক চিমটি হলুদের গুঁড়া + ১ চা চামচ মধু এবং কিছু জল নিন। এগুলি সবগুলি মিশিয়ে আপনার শুষ্ক ত্বকে লাগানোর জন্য একটি ভাল টেক্সচারযুক্ত পেস্ট তৈরি করুন। এটি স্বাভাবিকভাবে শুকিয়ে গেলে ধুয়ে ফেলুন। শুষ্ক ত্বকের প্যাচগুলির জন্য সপ্তাহে কমপক্ষে দু’বার এই প্রক্রিয়াটি পুনরাবৃত্তি করুন।

Leave a Reply